রাসায়নিক পরিবর্তন (Chemical Change) কাকে বলে?

রাসায়নিক পরিবর্তন :

যে পরিবর্তনে পদার্থের মূল গঠন পরিবর্তিত হয়ে পদার্থটি এক বা একাধিক নতুন ধর্মবিশিষ্ট অন্য পদার্থে পরিণত হয়, সেই পরিবর্তনকে রাসায়নিক পরিবর্তন বলে। এই পরিবর্তন স্থায়ী এবং এই পরিবর্তনে পদার্থের অণুর গঠনে পরিবর্তন ঘটে। •

রাসায়নিক পরিবর্তনের বৈশিষ্ট্য :-

(i) রাসায়নিক পরিবর্তনে পদার্থের অণুর গঠনে আমূল পরিবর্তন ঘটে সম্পূর্ণ ভিন্ন ধর্মবিশিষ্ট নতুন পদার্থ উৎপন্ন হয়।

সামান্য অ্যাসিডযুক্ত জলে তড়িৎ-বিশ্লেষণ করলে জলের অণু বিয়োজিত হয়ে হাইড্রোজেন এবং অক্সিজেনে পরিণত হয়। এদের ধর্ম এবং জলের ধর্ম এক নয়।

(ii) রাসায়নিক পরিবর্তন স্থায়ী। পরিবর্তিত পদার্থকে রাসায়নিক প্রক্রিয়া ছাড়া সহজে মূল পদার্থে ফিরিয়ে আনা সম্ভব হয় না।

কার্বনকে বাতাসের মধ্যে দহন করলে CO২ গ্যাস উৎপন্ন হয়। এই CO থেকে সহজে কার্বন উৎপন্ন করা যায় না।

(iii) বিক্রিয়ক ও বিক্রিয়াজাত পদার্থের মোট ওজন একই থাকে, কিন্তু ব্যবহৃত পদার্থগুলির নিজস্ব ওজন নিশ্চয়ই বাড়ে অথবা কমে।

(iv) রাসায়নিক পরিবর্তনের সময় পদার্থের মধ্যে তাপের হ্রাস অথবা বৃদ্ধি ঘটবেই। হাইড্রোজেন এবং অক্সিজেনের রাসায়নিক বিক্রিয়ার দ্বারা জল উৎপন্নের সময় তাপ উৎপন্ন হয়। আবার কার্বন এবং সালফারের বিক্রিয়ায় কার্বন ডাই-সালফাইড উৎপন্নের সময় তাপ শোষিত হয়।

(v) রাসায়নিক পরিবর্তনে তাপ, চাপ, অনুঘটক বা অন্য কোন বস্তুর বা শক্তির প্রভাবের দরকার হয়।

রাসায়নিক পরিবর্তনের উদাহরণ :-

কয়লার দহন :- কয়লাকে পোড়ালে কার্বন ডাই-অক্সাইড গ্যাসে পরিণত হয় এবং ছাই পড়ে থাকে। এই ছাই থেকে কয়লাকে ফিরে পাওয়া যায় না। কয়লার ওজন ও ছাইয়ের ওজন এক হয় না।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *